স্থায়ী যুদ্ধ বিরতি করতে ইয়েমেনে সৌদি প্রতিনিধিদল

স্থায়ী ভাবে যুদ্ধ বিরতির বিষয়ে আলোচনা করতে সৌদি ও ওমানের একটি প্রতিনিধিদল ইয়েমেনের রাজধানী সানায় পৌঁছেছে। দীর্ঘ নয় বছরের সংঘাতের পর ইয়েমেনের হুথি কর্মকর্তাদের সঙ্গে যুদ্ধ বিরোধী শান্তি আলোচনায় বসতে যাচ্ছে সৌদি আরব সরকার।

চীনের মধ্যস্থতায় সৌদি আরব এবং ইরান দুদেশের সম্পর্ক পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে সম্মত হওয়ার পর সৌদিআরব ও যুদ্ধরত হুথি বাহিনীর সাথে এই শান্তি আলোচনাকে গুরুত্বের চোখে দেখছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো।

গত ২০১৫ সালে দক্ষিণ ইয়েমেনের সানার নিয়ন্ত্রণ নেয় হুথি মিলিশিয়া বাহিনীর সদস্যরা, বর্তমানে তারাই শহরটি নিয়ন্ত্রণ করছে। হুথিদের হাতে সানার পতনের পরই সৌদি-নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনে আগ্রাসন চালায়। তারপর থেকেই যুদ্ধ চলতে থাকে। সৌদি জোটের আক্রমণে নিহত হয় লাখ লাখ ইয়েমেনি এবং হুথি বাহিনীর আক্রমণেও সৌদি জোটের অনেক সেনা নিহত হয়। উক্ত যুদ্ধের ফলে অনাহারে মারা গেছে বহু শিশু। যুদ্ধবিধ্বস্ত দারিদ্রপীড়িত দেশটির ৮০ শতাংশ মানুষ বর্তমানে জীবনধারণের জন্য সহায়তার ওপর নির্ভর করে আসছে, যার অধিকাংশ সহযোগিতা সৌদিআরবের মানবিক সংগঠন গুলোই করে থাকে ।

যুদ্ধ বিরোধী শান্তি আলোচনার বিষয়ে সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি, তবে হুথিদের গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে,সৌদি এবং ওমানি প্রতিনিধিরা সানায় পৌঁছেছেন।

এদিকে তারা একটি ছবিও প্রকাশ করেছে। ছবিতে হুথি নেতা মোহাম্মদ আলী এবং একজন সৌদি কর্মকর্তার সাথে করমর্দন করতে দেখা যায়। তবে ছবির ওই সৌদি কর্মকর্তার চেহারা অস্পষ্ট করে দেখানো হয়েছে।

Leave a Comment