অনুপস্থিতির কারণ জানতে এসে পেলেন শিক্ষিকার ম’রদেহ !

সুনামগঞ্জ পৌর শহরের একটি ভাড়া বাসা থেকে এক শিক্ষিকার ঝু’লন্ত মৃ’তদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি দীর্ঘদিন যাবত এই বাসায় একাই ভাড়া থাকতেন। উদ্ধারকৃত শিক্ষিকা সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলার মৃ’ত নিবারন চন্দ্র পালের মেয়ে সমাপ্তি পাল সোনালী। তিনি একই উপজেলার মুক্তাখাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ছিলেন।

রবিবার (২২ জানুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের জামতলার একটি ভাড়া বাসা থেকে পুলিশ এই শিক্ষিকার মৃ’তদেহটি উদ্ধার করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সুনামগঞ্জ পৌর শহরের জামতলা এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া বাসায় থাকছিলেন সমাপ্তি। রবিবার সকালে স্কুলে অনুপস্থিতির কারণ জানতে চেয়ে লোক পাঠান প্রধান শিক্ষক। পরে বাসার দরজায় টেবিল দিয়ে আটকানো দেখেন। এছাড়া সমাপ্তির মরদেহ ঝু’লতে দেখে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সালেহ আহমদ বলেন, ‘সোনালী পাল এক দশক ধরে আমাদের বিদ্যালয়ে শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন। শহরের একটি বাসায় ভাড়া থেকে তিনি নিয়মিত স্কুলে যাতায়াত করতেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘সোনালী পাল আজ রবিবার কোনও ছুটি নেননি। দুপুরের দিকে খোঁজ নিতে পাঠাই এরপর খবর পাই বাসা থেকে পুলিশ তার ম’রদেহ উদ্ধার করেছে। এর চেয়ে বেশি কিছু আমরা জানি না।’

ওই শিক্ষিকার মামাতো ভাই তপু পাল জানান, সকালে স্কুলে অনুপস্থিতির কারণ জানতে চেয়ে প্রধান শিক্ষক তাকে ফোন দিলে তিনি সোনালী পালের বাসায় এসে দেখেন দরজা একটা টেবিল দিয়ে আটকানো, ভিতরে সোনালীর ম’রদেহ ঝুল’ছে। পরে পুলিশ এসে ম’রদেহ উদ্ধার করে।

সুনামগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন বলেন, শিক্ষিকার ম’রদেহটি ঘরের একটি ফ্যা’নের স’ঙ্গে ঝু’লছিল। ম’রদেহটি সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল ম’র্গে পাঠানো হয়েছে। মৃ’তদেহের সুরতহাল তৈরি করা হচ্ছে। ময়’নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃ’ত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *