ঢাকায় পড়তে আসায় কাল হলো নাদিয়ার !

নাদিয়া আক্তার (১৯)। রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন। উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হলেও তা অকালেই ঝরে গেল সড়কে। রাজধানীর প্রগতি সরণিতে ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে নিহত হয় নাদিয়া।

জানা গেছে, নাদিয়া ১০-১৫ দিন আগে রাজধানীর আশকোনায় অবস্থিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্দান ইউনিভার্সিটির বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর তিনি উত্তরা এলাকায় থাকতেন। তার পরিবারের সদস্যরা থাকেন নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায়। রোববার (২২ জানুয়ারি) নাদিয়া তার এক বন্ধুর সঙ্গে মোটরসাইকেলে করে রাজধানীর প্রগতি সরণি এলাকায় ঘুরতে আসেন। দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটের দিকে স্থানীয় একটি মার্কেটের সামনে পৌঁছালে পেছন দিক থেকে আসা ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের একটি বাস মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়।

ভাটারা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বজলুর রহমান বলেন, নাদিয়ার পরিবার নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় থাকে। ১০-১৫ দিন আগে নাদিয়া রাজধানীর আশকোনায় অবস্থিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্দান ইউনিভার্সিটির ফার্মেসি বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন। আমরা প্রাথমিকভাবে যতটুকু জানতে পেরেছি তিনি প্রগতি সরণি এলাকায় আজ ঘুরতে এসেছিলেন। ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় ঘটনাস্থলে মারা যান তিনি।

ভাটারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ বি এম আছাদুজ্জামান বলেন, ঘটনাস্থলেই নাদিয়ার মৃত্যু হয়। বাসটিকে আটক করলেও চালক ও হেলপার পালিয়েছেন। তাঁদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। নাদিয়ার বাবা এ ঘটনায় মামলা করেছেন। তিনি বলেন, নাদিয়ার বন্ধু মেহেদী ঘটনার বর্ণনা দিয়েছেন। তাঁকে মামলার সাক্ষী করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ১৯ মার্চ যমুনা ফিউচার পার্কের কাছে বাসচাপায় নিহত হন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের ছাত্র আবরার আহমেদ চৌধুরী। একই বছর সেপ্টেম্বরে ভিক্টর ক্ল্যাসিক বাসের চাপায় তুরাগ এলাকায় কণ্ঠশিল্পী ও সংগীত পরিচালক পারভেজ রব নিহত হন। এর কয়েক দিন পর ভিক্টর ক্ল্যাসিকের আরেকটি বাসের চাপায় নিহত হন তাঁর ছেলের বন্ধু মেহেদী এবং আহত হন তাঁর ছেলে আলভি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *