হজ করতে সাইকেল চালিয়ে মক্কায় যাচ্ছেন স্কুল শিক্ষক

সাইকেলের পেছনে ঝোলানো থাইল্যান্ডের ছোট একটি পতাকা। একটু পরপর উৎসুক মানুষকে দেখে হাসি মুখে হাত নাড়ছেন চালক। সাইকেলের সামনে কাগজে ইংরেজিতে লেখা ‘বাইক ফর হজ’। সাইকেলে বাধা আছে তাঁবু থেকে শুরু করে হাঁড়ি-পাতিলসহ প্রয়োজনীয় নানা জিনিস। থাইল্যান্ডের নাগরিক ইসা আবদুস সালাম (পানওয়ান)। বয়স ৬৪। থাইল্যান্ড থেকে সাইকেল চালিয়ে সৌদি আরবে যাচ্ছেন হজ করতে।

গত ১৫ জানুয়ারি থাইল্যান্ড থেকে রওনা হয়ে, আজ বুধবার ২৫ জানুয়ারি সকালে বাংলাদেশের বেনাপোল বন্দরে পৌঁছান তিনি। বেনাপোল দিয়ে ভারতে ঢোকেন। এর পর পাকিস্তান, ইরান, কুয়েত হয়ে যাবেন কাঙ্ক্ষিত মক্কায়। আজ বুধবার সকালে বেনাপোল পৌঁছে ইমিগ্রেশনের কাজ সম্পূন্ন করেন। জিরো লাইনে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর মুরালে তুললেন সেলফি, বললেন আই লাভ বাংলাদেশ।

এ সময় সীমান্তে ছিল উৎসুক মানুষের ভিড়। হাত নেড়ে অনেকে অভিবাদন জানায় ইসাকে। ইসা সহাস্যে দেন প্রত্যুত্তর। স্থানীয়দের সঙ্গে তোলেন ছবি। বাংলাদেশিদের আতিথেয়তার প্রশংসাও করেন তিনি। ইসাকে দেখে অনেকের মতে আব্দুস সালাম ও কাজরি বেগমও দাঁড়িয়ে পড়েন। সাইকেল চালিয়ে হজে যাওয়া দেখে বললেন, সুন্দর একটি দৃশ্যের সাক্ষী হলেন তারা।

এদিকে থাইল্যান্ডের নাগরিক ইসা আবদুস সালামের বাড়ি দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় সিয়াং রাই প্রদেশে। পেশায় স্কুল শিক্ষক। কোনো সন্তান নেই। স্ত্রীকে বাড়িতে রেখে সাইকেল চালিয়ে হজের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন তিনি। এর আগে দুইবার হজ করলেও এবার সাইকেল চালিয়ে হজ করার পণ করেছেন তিনি। ১৫ জানুয়ারি বাড়ি থেকে রওনা দেন ইসা। মিয়ানমার সীমান্তে উত্তেজনার কারণে ব্যাংকক থেকে বিমানে সাইকেল নিয়ে ১৭ জানুয়ারি ঢাকায় পৌঁছান।

এরপর সাইকেলে চালিয়ে মনিকগঞ্জ, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, মাগুরা, যশোর হয়ে আট দিন পর বুধবার সকালে বেনাপোল পৌছান। ভারত, পাকিস্তান, ইরান, কুয়েত হয়ে যাবেন মক্কায়। দীর্ঘ এই পথ পাড়ি দিতে সময় লাগবে ছয় মাস। হজ শেষে সাইকেলে ইরান, তুর্কমেনিস্তান, উজবেকিস্তান, কিরগিস্তান ও চীন হয়ে থাইল্যান্ডে ফিরবেন আরো ছয় মাসে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *