সিলেটে জার্মান শিক্ষিকার সঙ্গে যুবকের বিয়েতে ১০ হাজার মেহমান

প্রেমের টানে জার্মানির তরুণী মারিয়া সিলেটের বিশ্বনাথে আসেন। বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন স্থানীয় আব্রাহাম হাসান নাঈমের সঙ্গে। গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) রাজকীয় আয়োজনে সম্পন্ন হয় আব্রাহাম-মারিয়ার বিয়ের মূল আনুষ্ঠানিকতা।

এরপর বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে মুসলিম রীতিতে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। রাজকীয় এ বিয়ের অনুষ্ঠানে পুরো গ্রামের মানুষকে দাওয়াত করা হয়। অন্তত ১০ হাজারের বেশি লোকজনকে আপ্যায়ন করানো হয়। বিয়ের এ অনুষ্ঠান ঘিরে ব্যাপক আলোচনা পুরো বিশ্বনাথজুড়ে। আর জার্মানি তরুণীকে এক নজর দেখতে প্রতিদিন ওই বাড়িতে ভিড় করছেন লোকজন।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, বিশ্বনাথের জনৈক ব্যক্তির মাধ্যমে নাঈমের সঙ্গে মারিয়ার পরিচয় হয়। এ পরিচয়ের সূত্র ধরে কথোপকথন, একে অন্যকে বুঝতে শুরু করেন। এরপর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে নাঈম ও মারিয়ার। একপর্যায়ে মারিয়া জার্মান যেতে নাঈমকে আমন্ত্রণ জানায়। যদিও নাঈম মারিয়াকে বাংলাদেশে আসতে বলেন। উভয়ের পরিবার তাদের বিয়ের সিদ্ধান্ত নেয়।

এর প্রেক্ষিতে গত ২৩ ডিসেম্বর সুদূর জার্মান থেকে বাংলাদেশে আসেন মারিয়া। এরপর বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে মুসলিম রীতিতে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। রাজকীয় এ বিয়ের অনুষ্ঠানে পুরো গ্রামের মানুষকে দাওয়াত করা হয়। অন্তত ১০ হাজারের বেশি লোকজনকে আপ্যায়ন করানো হয়।

নিজের অনুভূতি জানাতে গিয়ে মারিয়া বলেন, প্রথমবার বাংলাদেশে এসে আমি খুব আপ্লুত। যদিও জার্মানের সঙ্গে এদেশের অনেক তফাৎ। তারপরও আমি এখানে এসে খুব খুশি। দারুণ অনুভূতি, সবাই আমার দেখভাল করছে। এখানের পরিবেশও অসাধারণ, এটা আমার পছন্দ হয়েছে।

প্রসঙ্গত, জার্মান তরুণী একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যায়ের শিক্ষিকা মারিয়া। তিনি পিএইচডিও করছেন। আর নাইমও পেশায় কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *