মেসিদের বাংলাদেশে আনতে প্রয়োজন ১০২ কোটি টাকা

বাংলাদেশে রয়েছে আর্জেন্টিনার বিপুল সমর্থক। তাই বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনাকে বাংলাদেশে প্রীতি ম্যাচ খেলানোর পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। আজ বাফুফে ভবনে আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আর্জেন্টিনা-মেসির বিষয়ে অনানুষ্ঠানিকভাবে কথা বলেছেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

এর আগে সর্বশেষ ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে এসেছিল আর্জেন্টিনা। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচও খেলেছিল লিওনেল মেসির দল। তবে বোর্ডের ভাষয়, এক দশক আগে আর্জেন্টিনাকে আনতে যা খরচ হয়েছিল এবার অনেক বেশি হবে, ‘দশ বছরে অনেক কিছুই বেড়েছে। এখন তারা বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। সব মিলিয়ে আর্জেন্টিনার জন্যই ৭ মিলিয়ন (ডলার) লাগতে পারে। আর পুরো ম্যাচের ব্যয় ১০ মিলিয়নের মতো হতে পারে (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১০২ কোটি টাকা)।’

সর্বশেষ দেশে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ ছিল নাইজেরিয়া। এবার প্রতিপক্ষ কারা হবে সেটা নিয়ে এখনো ভাবছেন না বাফুফে সভাপতি, ‘আগে আর্জেন্টিনাকে নিশ্চিত করতে চাই। এরপর প্রতিপক্ষ ঠিক করা হবে।’ চলতি বছরের ফিফা ক্যালেন্ডার ঘোষিত হয়েছে। আপাতত জুন-জুলাইয়ের উইন্ডো টার্গেট করছে বাফুফে, ‘মার্চ উইন্ডোতে সম্ভব হচ্ছে না। জুন উইন্ডোতে আনার চেষ্টা থাকবে।’

জানা যায়, বর্তমান প্রেক্ষাপটে বড় সমস্যা স্টেডিয়াম। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম এখনও সংস্কারধীন। সম্প্রতি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলের সঙ্গে দেখা করেছেন বাফুফে সভাপতি। সেখান থেকে আশ্বাস পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি, ‘মন্ত্রীর সঙ্গে আমার আলোচনা হয়েছে। জুনের আগে স্টেডিয়াম পাওয়া যাবে বলে তিনি জানিয়েছেন।’ আর্জেন্টিনা ছাড়াও প্যারিস সেন্ট জার্মেই ( পিএসজি) ক্লাবের বিষয়টিও আলোচনা হচ্ছে।

তবে এক্ষেত্রেও কিছু বিপত্তি দেখছেন বাফুফে সভাপতি। তিনি জানান, ‘পিএসজিতে মেসি, নেইমার, এমবাপে রয়েছে। কিন্তু ওখানে সমস্যা হচ্ছে, ক্লাবে তো ফিফা ক্যালেন্ডার নেই। তাদের আনতে হলে প্রি সিজনে আনতে হয়। মেসির চুক্তি এই বছর পর্যন্ত। মেসি পিএসজিতে না থাকলে তো আর পিএসজিকে আনা যায় না।’ আর্জেন্টিনা অথবা পিএসজি যে কোনো দলকে আনা অনেক কঠিন কাজ। অনেক অর্থের প্রয়োজন। তবে বাফুফে সভাপতি চেষ্টা করতে বাধা দেখছেন না কোনো, ‘সীমাবদ্ধতা রয়েছে, তবে চেষ্টা করতে তো সমস্যা নেই।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *