স্ত্রীর বিরুদ্ধে আরজে কিবরিয়ার জিডি

কক্সবাজারে বেড়াতে গিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে ঝগ’ড়ার পর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন জনপ্রিয় রেডিও জকি ও ইউটিউবার গোলাম কিবরিয়া সরকার।বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে স্ত্রীর বিরুদ্ধে জিডি করেন তিনি। কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে, পারিবারিক বিষয় নিয়ে বাড়াবাড়ির জে’র ধরে তার স্ত্রী আ’ত্মহ’ত্যা ও সন্তানদের মে’রে ফেলার হু’মকি দেয়ায় কিবরিয়া ভবিষ্যত নিরাপত্তার স্বার্থে বিষয়টি থানাকে অবহিত করেছেন।

বিশেষ সূত্রে জানা যায়, আরজে কিবরিয়া স্ত্রী-সন্তানসহ ৫-৭ জনের একটি পারিবারিক বহর নিয়ে বুধবার কক্সবাজার বেড়াতে এসে সৈকত তীরের একটি তারকা মানের হোটেলে উঠেন। সেখানেই বৃহস্পতিবার সকালের কোন এক সময় স্বামী-স্ত্রীর মাঝে পারিবারিক কলহ নিয়ে তর্কাতর্কি হয়। এসময় সন্তানদের মে’রে স্ত্রী আত্মহ’ত্যার হু’মকি দিলে আরজে কিবরিয়া জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯-এ কল দেন। কল পেয়ে কক্সবাজার সদর থানার একটি টিম হোটেলে গিয়ে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালান। এবং নিরাপত্তার স্বার্থে আরজে কিবরিয়াকে জিডি করার পরামর্শ দেন।

৯৯৯-এ কর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাওয়া কক্সবাজার সদর থানার এসআই ইফতেখার বলেন, বৃহস্পতিবার বেলা ১টার দিকে আরজে কিবরিয়া নামের একজনের কল পেয়ে কলাতলী এলাকার সৈকত তীরের একটি তারকা হোটেলে যাই। পারিবারিক কলহে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে তর্কাতর্কির বিষয়টি মিটমাট করার চেষ্টা করা হয়। এরপরও ভবিষ্যত প্রয়োজনে স্বামী আরজে কিবরিয়া একটি জিডি করতে চাইলে তাকে সহযোগিতা করা হয়েছে। তারা এখনো হোটেলে আছেন। শুক্রবার তারা স্বপরিবারে কক্সবাজার ত্যাগ করার কথা রয়েছে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,পারিবারিক বিষয়ে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে ত’র্কাত’র্কি হয়েছে। নিরাপত্তার স্বার্থে স্বামী কিবরিয়া জিডি করেছেন। তবে, এ বিষয়ে আরজে কিবরিয়া কিংবা তার স্ত্রীর কোন বক্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, আরজে কিবরিয়ার পুরো নাম মো. গোলাম কিবরিয়া সরকার। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পাবলিক প্রশাসন বিভাগে থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে রেডিও জকি (আরজে) হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। টানা ১৬ বছর রেডিওতে কাজ করেছেন বিভিন্ন অনুষ্ঠানের উপস্থাপক হিসেবে। শুরুর দিকে ২০০৬ সালে রেডিও টুডেতে ‘কথা বন্ধু’ এপিসোডে কাজ শুরু করেন। এরপর একে একে জীবনের গল্প, সিক্রেটস, হ্যালো ৮৯২০, যাহা বলিব সত্য বলিব, লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ডসহ বেশ কয়েকটি জীবনধর্মী অনুষ্ঠানে উপস্থাপন করেছেন। শুদ্ধ ও সাবলীল বাচনভঙ্গি, জীবনঘনিষ্ঠ অনুষ্ঠান হওয়া আর চমৎকার উপস্থাপনের কারণে অল্প সময়েই প্রতিটি অনুষ্ঠানই শ্রোতাদের কাছে জনপ্রিয় হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *