বিয়ের এক মাসের মাথায় শ্যালিকাকে নিয়ে দুলাভাই উধাও !

খুলনার পাইকগাছায় বিয়ের এক মাস যেতে না যেতেই দুলাভাইয়ের সঙ্গে শ্যা’লিকা পালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে দুলাভাইয়ের দাবি— তিনি তার শ্যালিকাকে নিয়ে যাননি। তিনি তার নিজ বাড়িতেই অবস্থান করছেন। শ্যা’লিকার শ্বশুরবাড়ির লোকজন জানান, সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার খড়িয়াটি গ্রামের লুৎফর রহমানের ছোট মেয়ে আয়েশার সঙ্গে গত বছরের ৮ ডিসেম্বর বিয়ে হয় সোহেল রানার। তিনি পাইকগাছার বৃত্তি গোপালপুর গ্রামের হাকিম গাজীর ছেলে।

ওই মেয়ের সঙ্গে তার দুলাভাইয়ের দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে অভিযোগ করেন আয়েশার শ্বশুরবাড়ির লোকজন। আরিফুলের বাড়ি পাইকগাছার বাঁকা গ্রামে।

তার শ্বশরবাড়ির লোকজনের দাবি, প্রেমের টানে ১০ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৯টার দিকে সোহেল রানার বাড়ি থেকে শ্যালিকাকে নিয়ে ভেগে গেছেন দুলাভাই। বিভিন্ন জায়গায় খুঁজে না পেয়ে শ্বশুর আবদুল হাকিম গাজী বাদী হয়ে শনিবার পাইকগাছা থানায় অভিযোগ করেছেন।

আয়েশার শাশুড়ি হাসিনা বেগম বলেন, আমার বউমার সঙ্গে তার দুলাভাই আরিফুল ইসলামের দীর্ঘদিন ধরে প্রেম আছে। এ নিয়ে কয়েকবার স্থানীয়ভাবে সালিশবৈঠক হয়েছে। কিন্তু কোনোভাবেই তাদের সম্পর্ক ছিন্ন করা যায়নি।

আয়েশার স্বামী সোহেল রানার দাবি— বিয়ের এক মাস যেতে না যেতেই আমার টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে সে দুলাভাইয়ের সঙ্গে চলে গেছে। তাদের এখনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

তবে অভিযোগের বিষয়ে দুলাভাই আরিফুল বলেন, আমি আমার বাড়িতেই আছি। আমার সঙ্গে আয়েশার কোনো যোগাযোগ হয়নি। আমার বি’রুদ্ধে মি’থ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে পাইকগাছা থানার ওসি জিয়াউর রহমান জানান, ঘটনাটি জেনেছি। প্রাথমিকভাবে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *