আমার জনপ্রিয়তায় অনেকেই ভীত, এর জন্যই আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে: হিরো আলম

এবার বগুড়া-৪ ও ৬ আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থিতা ফিরে পেতে আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলমের করা আপিল আবেদন খারিজ করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে এই উপনির্বাচনে লড়তে এখানেই থেমে যাচ্ছেন না তিনি। প্রার্থিতা পেতে হাইকোর্টে আপিলের পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন। গতকাল রবিবার ১৫ জানুয়ারি ঢাকার আগারগাঁওয়ের নির্বাচন কমিশন থেকে হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়।

এদিকে বগুড়া জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মাহমুদ হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, “আশরাফুল হোসেন ওরফে হিরো আলমের দুটি আসনে প্রার্থিতা ফিরে পেতে করা আপিল আবেদন খারিজ করেছে নির্বাচন কমিশন।”

এর আগে গত বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনে হিরো আলমের মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে করা আপিলের ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। কমিশনে হাজির হয়ে শুনানিতে অংশ নেন তিনি। এ সময় প্রার্থিতা ফেরতের বিষয়ে তার পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কাজী রেজাউল হোসেন যুক্তি তুলে ধরেন।

এ প্রসঙ্গে হিরো আলম বলেন, “আমার নির্বাচন করা নিয়ে অনেকের মাথাব্যথা শুরু হয়েছে। আমার জনপ্রিয়তায় অনেকেই ভীত-সন্ত্রস্ত। এ কারণে ষড়যন্ত্র করে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “নির্বাচন কমিশনে আপিল করেছিলাম। সেখানেও আবেদন খারিজ করে দিয়েছে। আমার বিরুদ্ধে অন্যায় করা হচ্ছে। আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এ অন্যায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করছি।”

এদিকে বিএনপির এমপিদের পদত্যাগে শূন্য সংসদের পাঁচটি আসনের উপনির্বাচন হবে ১ ফেব্রুয়ারি। এর মধ্যে বগুড়ার দুটি আসন রয়েছে। এ দুই আসনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেন হিরো আলম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *