বিয়েতে সাবেক প্রেমিকদের নিমন্ত্রণ, বসানো হলো একই টেবিলে!

কারো সাবেক প্রেমিক-প্রেমিকা থাকলে বিয়ের মতো একটি বিশেষ দিনে সাধারণত তাদের এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেন সবাই। লুকানোর চেষ্টা করেন এ সম্পর্কিত সবধরনের স্মৃতিচিহ্ন। কিন্তু সম্প্রতি চীনের এক তরুণী যা করেছেন, তা অকল্পনীয়ই বটে! তিনি নিজের বিয়ের অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ জানিয়েছেন পাঁচজন সাবেক প্রেমিককে। শুধু তা-ই নয়, তাদের এক টেবিলে বসিয়ে অতীত সম্পর্কের কথাও জানিয়ে দিয়েছেন সবাইকে।

এদিকে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের খবর অনুসারে, গত ৮ জানুয়ারি অদ্ভুত এ ঘটনাটি ঘটেছে চীনের হুবেই প্রদেশে। অনেকেই এটিকে ‘সবচেয়ে অদ্ভুত বিয়ের অনুষ্ঠান’ বলে অভিহিত করেছেন। সামাজিক যোগাযোগামাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, বিয়ের অনুষ্ঠানে একটি টেবিল ঘিরে অন্তত পাঁচজন পুরুষ বসে রয়েছেন। আর সেই টেবিলের ওপর একটি কার্ডে লেখা রয়েছে ‘সাবেক প্রেমিকদের টেবিল’।

ভিডিওতে ওই পাঁচ যুবককে শান্তভাবে বসে থাকতে দেখা গেলেও সাবেক প্রেমিকার বিয়েতে তারা যে অস্বস্তিতে ছিলেন, তা ছিল স্পষ্ট। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওই টেবিলে দুই নারীও বসা ছিলেন। তারা বিয়ের কনের সাবেক প্রেমিকদের বর্তমান সঙ্গী বলে জানা যায়। টেবিলে বসা পাঁচ যুবক, অর্থাৎ ওই তরুণীর সাবেক প্রেমিকদের লজ্জাবনত মুখ দেখে আপ্লুত হয়েছেন অনেকে। তবে তাদের চেহারায় অবিশ্বাস্য মিল দেখে অবাকও হয়েছেন কেউ কেউ।

এভাবে, বিয়ের অনুষ্ঠানে সাবেক প্রেমিকদের নিমন্ত্রণ জানানোর ঘটনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে। একজন মন্তব্য করেছেন, নিজের বিয়েতে সাবেক প্রেমিকদের নিমন্ত্রণ জানানো যেমন সাহসের ব্যাপার, তেমনি সেখানে উপস্থিত হওয়াও। ওই পাঁচ যুবকের চেহারায় মিল থাকা নিয়ে মজা করে আরেকজন বলেছেন, সেই বুদ্ধিদীপ্ত কনেকে অভিবাদন, যিনি বহু আগে হারিয়ে যাওয়া ‘ভাইদের’ পুনর্মিলিত করেছেন।

তৃতীয় একজনের কৌতুকপূর্ণ মন্তব্য, ‘মনে হয় আমি বুঝতে পারছি, বর দেখতে কেমন।’ তবে কেউ কেউ বলেছেন, এটি বর ও তার পরিবারের জন্য অসম্মানজনক ঘটনা। কেউ কেউ বরের ‘সত্যিকারে বড় হৃদয়’-এর জন্য প্রশংসাও করেছেন। অবশ্য বিয়ের অনুষ্ঠানে ‘সাবেক প্রেমিকদের টেবিল’ রাখার ঘটনা চীনে এটি প্রথমবার নয়।

২০২২ সালের জুন মাসে একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যায়, ‘সাবেক প্রেমিকদের টেবিল’-এ বসে রয়েছেন নয় যুবক। পরে তাদের হাতে একটি ব্যানার দেখা যায়, যেখানে লেখা ছিল ‘সব সাবেক প্রেমিক টিংয়ের শুভবিবাহ কামনা করছে’। গুয়াংডং প্রদেশের ঘটনাটি সেসময় বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। যদিও পরে দেখা যায়, এটি আসলে মজা ছিল। বাস্তবে ওই নয় যুবক ছিলেন কনের বাল্যবন্ধু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *