লোকসান কমাতে বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দেয়া হচ্ছে শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক !

এবার বিয়ে, গায়ে হলুদ কিংবা জন্মদিনের অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দেয়া হচ্ছে যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক। কর্তৃপক্ষ বলছে, লোকসানের হাত থেকে বাঁচতেই বাইরের মানুষের কাছে অডিটোরিয়াম ভাড়া দিচ্ছেন তারা। যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের উদ্বোধন হয় ২০১৭ সালের ১০ ডিসেম্বর। যশোর শহরের নাজির শঙ্করপুর এলাকায় ১২ একরের বেশি জমিতে প্রতিষ্ঠিত পার্কটিতে রয়েছে তিনটি ভবন।বিনিয়োগকারীদের জন্য ইজারাযোগ্য জায়গা রয়েছে ১ লাখ ৩৭ হাজার বর্গফুট।

আরও রয়েছে আবাসন, সম্মেলন, মেলা আয়োজনসহ নানা সুবিধা। পার্কটি নির্মাণে সরকারের ব্যয় হয়েছে ৩০৫ কোটি টাকা। বর্তমানে এটি দেখাশোনা করছে টেকসিটি বাংলাদেশ লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান। এখানে আছে ৩৩ কেভি পাওয়ার সাব- স্টেশন, ফাইবার অপটিকাল ইন্টারনেট লাইন এবং অন্যান্য ইউটিলিটি সার্ভিসের সুবিধা।

এ পার্কে রয়েছে ডেটা সংরক্ষণের জন্য দেশের দ্বিতীয় সার্ভার স্টেশন। ফলে, পুরো পার্কটিই মূলত সংরক্ষিত এলাকা। কিন্তু, এখন বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য ভাড়া দেয়া হচ্ছে এই পার্কের অডিটোরিয়াম। বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য এ অডিটোরিয়াম ভাড়া দেয়ায় খুশি নন বিনিয়োগকারীরা। এ ব্যাপারে তারা সরাসরি মুখ না খুললেও জানান, বহিরাগতরা আসায় আইটি পার্কের নিরাপত্তা হুমকির মধ্যে পড়ছে। যখন-তখন শত শত মানুষ ঢুকে পড়ছে এই সংরক্ষিত এলাকায়।

এদিকে পার্কটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকা কোম্পানি টেকসিটি বাংলাদেশ লিমিটেড বলছে, তাদের লোকসান হচ্ছে। এ কারণেই পার্কে এখন তারা বিয়েসহ বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে। যাতে আয় বাড়ে। প্রতিষ্ঠানটির দেয়া হিসেব অনুযায়ী, গত বছরের আগস্ট পর্যন্ত আগের ছয় মাসে এ সফটওয়্যার পার্কে ৫৫টি অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়েছে। এরমধ্যে, বিয়ে ও বউভাতের মতো অনুষ্ঠান হয়েছে ২৩টি। বাকিগুলো চাকরি মেলাসহ অন্যান্য অনুষ্ঠান।

টেকসিটির মহাব্যবস্থাপক মোসলেম উদ্দীন শিকদার গণমাধ্যমকে বলেন, বিয়েশাদি জাতীয় অনুষ্ঠান না করলে টিকে থাকা যাচ্ছে না। যে কারণে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের ভিত্তিতে এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। তিনি আরও বলেন, আয়ের চেয়ে আমাদের ব্যয় বেশি হচ্ছে। ভবিষ্যতে লাভের আশায় এখন লোকসান দিয়ে পার্কটি দেখভাল করতে হচ্ছে।

সম্প্রতি এক শুক্রবার পার্কের ভেতরে গিয়ে দেখা যায়, একটি বউভাত অনুষ্ঠান হচ্ছে। সেখানে প্রায় ৭০০ জন আমন্ত্রিত অতিথি এবং তাদের সাথে ছোট শিশুরা এসেছেন। তারা পার্কের বিভিন্ন ফুল বাগানে গিয়ে দাঁড়িয়ে ছবি তুলছেন। কিছু মানুষকে উঁচু ভবনে উঠে সেলফি তুলতেও দেখা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *